7990c0fb724b767bd53d4ab255bdf0d9-6

গত ২৫ এপ্রিল, ২০১৬-তে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় হয়ে গেল চারুনীড়ম থিয়েটারের “শেষ নবাব” নাটকের প্রথম মঞ্চায়ন। লিখেছেন স্নিগ্ধ রহমান।

বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ছিলেন প্রয়াত সাঈদ আহমেদ। পড়াশোনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও লন্ডন স্কুল অফ ইকোনমিক্সে। কর্মসূত্রে গিয়েছেন বিভিন্ন দেশে, মিশেছেন সেখানকার সংস্কৃতিমনা মানুষদের সাথে। যাদের মাঝে এডওয়ার্ড সাঈদ আর ওরহান পামুক অন্যতম। আর লিখেছেন নাটক। ইউরোপীয়ান ঘরানার ‘অ্যাবসার্ড’ নাটক লিখে দেশী নাটকে যোগ করেন নতুন মাত্রা। পলাশীর যুদ্ধের আগের রাত থেকে শুরু করে যুদ্ধ পরবর্তী ঘটনা, চরিত্রদের মনস্তাত্ত্বিক অবস্থা নিয়ে রচনা করেন নাটক “শেষ নবাব”। এটি তার পঞ্চম নাটক। মজার বিষয় হলো, এই নাটকটি চারুনীড়ম থিয়েটারেরও পঞ্চম প্রযোজনা।
চারুনীড়ম থিয়েটার ২০১০ সালে যাত্রা শুরু করে। মূলত চারুনীড়ম স্কুল অব অ্যাক্টিঙের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের নিয়ে এটি গঠিত। শেষ নবাব নাটকটি মঞ্চস্থ করতে সহযোগিতা করেছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও সাঈদ আহমদ ফাউন্ডেশন ফর কালচার অ্যান্ড আর্টস (সাফকা)। উদ্বোধনী দিনে সাফকার সভাপতি নাট্যনির্দেশক আতাউর রহমান সহ আমন্ত্রিত 13091568_10208366707017829_66064135_oঅতিথিদের মাঝে ছিলেন চিত্রশিল্পী মুস্তাফা মনোয়ার, নাট্যকার মামুনুর রশীদ ও মানবাধিকারকর্মী সুলতানা কামাল। “যদি আর জন্মে আবার পলাশীতে আসার সুযোগ হয়, তাহলে আবার আমি মীরজাফরকে বিশ্বাস করবো” এই সংলাপটি থেকেই উদ্বুদ্ধ হয়ে, নাটকটির নির্দেশনা দিতে আগ্রহী হন গাজী রাকায়েত। পলাশী পূর্ববর্তী সময়ে সভাসদদের ভাবনা, নবাব সিরাজ কি ট্র্যাজিক হিরো না স্রেফ অনভিজ্ঞ শাসক এসব কিছুকে ভিন্ন আঙ্গিকে দেখার সুযোগ দেয় নাটকটি। শেষ নবাব নাটকের মঞ্চ পরিকল্পনা করেছেন ফয়েজ জহির আর আলোক পরিকল্পনা করেছেন অম্লাণ বিশ্বাস। নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন সালমান ডেভিড, আল মোতাস্‌সিম, শহিদুল করিম ও চামেলী সিন্‌হা।
0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *