Smiley face

ভানু আথাইয়া : অস্কারজয়ী প্রথম ভারতীয় এবং ফিরিয়ে দেয়া সম্মাননা

bhanuathaiya
নাফিজ মুনতাসির
ভারতের ইতিহাসে অস্কার জয়ের ঘটনা বেশ কম। একদমই হাতেগোণা । হয়তো ভবিষ্যতে সে সংখ্যা আরো বাড়বে। কিন্তু সবকিছু বাদ দিয়ে হলেও প্রথমবারের মতন সম্মানজনক অস্কার জয়ের ঘটনাটি সবসময়ই ইতিহাসের পাতায় উজ্জ্বল হয়েই থাকবে। ভারতে প্রথমবারের মতন অস্কার জয়ের সম্মানটি এনে দিয়েছিলেন একজন নারী। ১১ এপ্রিল, ১৯৮৩ সাল। ৫৫তম একাডেমী এওয়ার্ড অনুষ্ঠান চলছে। নানা পুরস্কারের পালাবদল শেষে এবার এলো ‘বেস্ট কস্টিউম ডিজাইন’ এর বিজয়ী ঘোষণার পালা। খাম খোলার পর নাম ঘোষিত হলো ভানু আথাইয়া। ‘Gandhi’ মুভিতে কস্টিউম ডিজাইনের জন্য সবাইকে হারিয়ে ভারতের ভানু আথাইয়া জিতে নেন অস্কার।
ভানু আথাইয়ার সঙ্গে অবশ্য যৌথভাবে ব্রিটিশ John Mollo ছিলো। কিন্তু সিনেমার মেজর সব কাজ ভানুর করা বলে আগেই সিদ্ধান্ত নেয়া ছিলো যে বিজয়ী হিসেবে ভানুর নাম ঘোষিত হলে সেই যাবে পুরস্কার আসতে। ভানু আথাইয়া ছিলো ক্যাটাগরীতে নমিনেশন পেয়ে অন্যদের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে জয়ী প্রথম ভারতীয় অস্কার বিজয়ী। ২০০৯ সালে ‘স্লামডগ মিলিওনিয়ার’ এর আগে প্রায় ২৬ বছর উনার এই রেকর্ডটি ছিলো।
তবে এই ঘটনায় একটি টুইস্ট রয়েছে। যিনি একটা দেশকে অস্কার জয়ের সম্মান এনে দিয়েছেন তার জন্য আসলে বেশ দু:খজনক ব্যাপারই। ভানু আথাইয়ার অস্কার জয়ের অনেকবছর পরের ঘটনা। ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১২ সালে একটা রিপোর্ট পাবলিশ হবার পর জানা যায় যে তিনি উনার অস্কার স্ট্যাচুয়েটটি ‘আমেরিকান একাডেমী অফ মোশন পিকচার আর্টস এন্ড সায়েন্সস’ এর নিকট ফেরত দিয়ে দিতে চাইছেন।
সবাই একটু চমকেই উঠেছিলেন খবরটি শুনে। তারপর আস্তে আস্তে সব বিস্তারিত জানা গেলো। অতীতের নানা তিক্ত অভিজ্ঞতার কারণে ভানু আথাইয়ার মনে ধারণা ছিলো তার দেশের সরকার উনার এই ট্রফিটির টেক কেয়ার এর যোগ্য না কিংবা পারবে না। মনে একগাদা ক্ষোভ রেখেই কথাগুলো বলা। নিজেই সরাসরি বলেছিলেন তার অর্জনের প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের উদাসীনতার কথা। উনাকে তার যোগ্য সম্মান না দেওয়ার ব্যাপারগুলো। এমনকি উনার ধারণা হয়ে গিয়েছিলো এই দেশে এখনও এরকম কোন মিউজিয়াম বা কোন প্রতিষ্ঠান হয়ে উঠেনি যারা যথাযোগ্য যোগ্যতায় এই ট্রফিটি সামলে রাখতে পারবে। এমনকি উনি মারা যাওয়ার পর উনার পরিবারের কেউ এই কাজটা করতে পারবে নাকি সেটা নিয়েও উনার মনে সন্দেহ ছিলো। এ বিষয় নিয়ে সরাসরিই বলেছিলেন যে,
‘আমি এখনও সঠিকভাবে জানি না আমি মারা যাওয়ার পর পরিবারের অন্য কেউ এটাকে ঠিকমতন যত্ন নিয়ে রাখতে পারবে নাকি। হয়তো পারতে পারে। কিন্তু আমার মতন কখনোই না। অন্য কেউই সেটা পারবে না।’
অস্কার অথরিটির কাছে পুরস্কারটি ফিরিয়ে দেয়ার এরকম ঘটনাটি যে নতুন এরকমও না। আগে অনেকেই এরকম করেছে। ভানু আথাইয়া সেসব মাথায় রেখেই কাজটি শুরু করেছিলেন। রিপোর্টটি আসতে আসতেই অলরেডি উনার কোঅরডিনেটর একাডেমীর সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেও দিয়েছিলো ফিরিয়ে দেয়ার ব্যাপার আলোচনা করতে।
১৫ ডিসেম্বর, ২০১২ সাল। একাডেমীর কাছে ভানু আথাইয়ার অস্কার ট্রফিটি ফিরিয়ে দেয়ার ব্যাপারটি অফিসিয়ালি কনফার্ম হয়। যে কারণেই হোক আর যেভাবেই হোক, ভারত তাদের প্রথম অস্কার ট্রফিটি নিজেদের দেশে ধরে রাখতে পারে নাই। চলে যেতে হয়েছিলো তাকে।
 

 

অস্কার ট্রিভিয়াঃ
শ্রেষ্ঠ পরিচালক ক্যাটাগরিতে John Ford সর্বোচ্চ ৪ বার অস্কার লাভ করেছেন। The Informer (1935),  The Grapes of Wrath (1940), How Green Was My Valley (1941)ও The Quiet Man (1952) এই ছবিগুলোর  জন্য অসামান্য এই কীর্তি গড়েন ফোর্ড।

 

 

POST YOUR COMMENTS

Your email address will not be published. Required fields are marked *

লোগো ডিজাইন - অন্তর রায়

ওয়েব ডিজাইন - এইচ ২ ও

অনলাইনে চলচ্চিত্র বিষয়ক পূর্ণাঙ্গ ম্যাগাজিন 'মুখ ও মুখোশ' । লেখা পাঠাতে ও আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে মেইল করতে পারেন এই ঠিকানায়ঃ mukhomukhoshcinemagazine@gmail.com