Smiley face

ট্রয় চলচ্চিত্রের রাজনৈতিক সংলাপ

2016-08-16_1112015-05-10_567brad-pitt-troy-wallpaper-4
পৃথিবীর সবচেয়ে আলোচিত মহাকাব্যগুলোর একটি হোমারের ঈলিয়াড। নাটক, টিভি সিরিজ, চলচ্চিত্র নানা শিল্প মাধ্যমে এটি অনেকবার রূপান্তরিত হয়েছে। প্রাচীন গ্রীসকে জানার একটি বড় উপায় এই ঈলিয়াড। গ্রীসের মানুষের ভাবনা, বিশ্বাস, সমাজব্যবস্থা, আশা আকাঙ্খা, উচ্চাভিলাস, কুসংসংস্কার সবকিছুর নথি হয়ে দাঁড়িয়েছে ঈলিয়াড। ২০০৪ সালে হলিউডে ঈলিয়াডের কাহিনীর উপর ভিত্তি করে নির্মিত হয় ট্রয় চলচ্চিত্রটি। মহাকাব্যিক আবহ তৈরির প্রায় সকল চেষ্টাই এতে ছিল। মহাকাব্যের গভীরতাকে ধারণ করার জন্য এর সংলাপগুলোও অনেক যত্ন নিয়ে তৈরি করা হয়েছে। ট্রয়ের প্রতি পদে পদে আছে রাজনৈতিক সংলাপ। ক্ষমতার লোভ, দখলদারিত্বের মানসিকতা, কখনো দেশপ্রেম খুব স্পষ্টভাবে উঠে এসেছে চরিত্রগুলোর সংলাপে। ট্রয়ের যে সংলাপগুলো রাজনৈতিকভাবে তাৎপর্যপূর্ণ সেগুলোর উপর আলোকপাত করার চেষ্টা করা হয়েছে তুহিন তালুকদার এর এই লেখাটিতে।
ট্রয় চলচ্চিত্রের শুরুতেই দেখা যায়,  রাজা আগামেমনন আক্রমণ করে থেসালি রাজ্য। থেসালির রাজা ট্রিওপাসের সঙ্গে আগামেমননের যুদ্ধ পূর্ববর্তী বাক্য বিনিময় হয়।
Triopas: Remove your army from my land.
Agamemnon: I like your land. I think we’ll stay. I like your soldiers too. They fought bravely yesterday. Not well, but bravely.
Triopas: They won’t fight for you.
Agamemnon: That’s what the Messenians said. And the Arcadians and the Epeians. Now they all fight for me.
Triopas: You can’t have the whole world, Agamemnon. It’s too big, even for you.
মহাত্মা গান্ধী বলেছিলেন, The world has enough for everyone’s need, but not enough for anyone’s greed. এই কথারই প্রতিধ্বনি, পৃথিবীটা আগামেমননের মত সর্বজয়ীর জন্যও অনেক বড়।
আগামেমনন এবং ট্রিওপাসের যুদ্ধে একিলিস প্রথমে যোগ দেয়না। পরে বিশেষ অনুরোধে একিলিস যুদ্ধ করতে আসে। থেসালির বোয়াগ্রিয়াসের সঙ্গে তাকে যুদ্ধ করতে বলা হয়। কিন্তু আগামেমননের সঙ্গে একিলিসের উত্তপ্ত বাক্য বিমিময়ের পর একিলিস যুদ্ধক্ষেত্র ত্যাগ করছিলো। তখন পাইলোসের রাজা নেস্টর একিলিসিকে বোঝাতে চেষ্টা করেন।
Nestor: Achilles. Achilles. Look at the men’s faces. You can save hundreds of them. You can end this war with a swing of your sword. Think how many songs they’ll sing in your honor. Let them go home to their wives.
Achilles: Imagine a king who fights his own battles. Wouldn’t that be a sight.
কেবল রাজায় রাজায় যুদ্ধ হয়ে শেষ হয়ে গেলে প্রাণহানি কতটা কমে যেত, তা সহজেই অনুমেয়। একিলিস বোয়াগ্রিয়াসের সঙ্গে লড়াই করতে চলে গেলে আগামেমনন বলে,
Agamemnon: Of all the warlords loved by the gods, I hate him the most.
Nestor: We need him, my king.
Agamemnon: For now.

troy1_2750450k

প্যারিস যখন স্পার্টার রাজা মেনেলাওসের স্ত্রী হেলেনকে নিয়ে ট্রয়ে চলে যায়, তখন মেনেলাওস ট্রয়ের সঙ্গে যুদ্ধের পরিকল্পনার জন্য নিজের বড় ভাই আগামেমননের কাছে যায়। যুদ্ধ আর শান্তি বিষয়ে তাদের মতামত লক্ষ্য করা মত।
Menelaus: I won’t rest till I’ve burned Troy to the ground.
Agamemnon: I thought you wanted peace with Troy.
Menelaus: I should have listened to you.
Agamemnon: Peace is for the women… …and the weak. Empires are forged by war.
…………………..
Menelaus: The Trojans spat on my honor. An insult to me is an insult to you.
Agamemnon: And an insult to me is an insult to all Greeks.
মেনেলাওসের সঙ্গে কথা বলার পর আগামেমনন নেস্টরের সঙ্গে পরামর্শ করতে বসেন। তাদের কথায় গ্রীসের রাজনীতি এবং যুদ্ধনীতির অনেক কথা জানতে পারা যায়। রাজনৈতিক সংলাপের জন্য এই অংশটি খুব উল্লেখযোগ্য।
Agamemnon: I always thought my brother’s wife was a foolish woman… …but she’s proved to be very useful. Nothing unifies a people like a common enemy.
Nestor: The Trojans have never been conquered. Some say they can’t be conquered.
Agamemnon: Old King Priam thinks he’s untouchable behind his high walls. He thinks the sun god will protect him. But the gods protect only…the strong! If Troy falls… …I control the Aegean.
Nestor: Hector commands the finest army in the east. And Troy is built to withstand a 10-year siege.
Agamemnon: There won’t be a 10-year siege. I’ll attack them with the greatest force the world has ever seen. I want all the kings of Greece and their armies. Send emissaries in the morning.
Nestor: One last thing. We need Achilles and his Myrmidons.
Agamemnon: Achilles. He can’t be controlled. He’s as likely to fight us as the Trojans.
Nestor: We don’t need to control him, we need to unleash him. That man was born to end lives.
Agamemnon: Yes, he’s a gifted killer. But he threatens everything I’ve built. Before me, Greece was nothing. I brought all the Greek kingdoms together. I created a nation out of fire worshipers and snake eaters! I build the future, Nestor. Me! Achilles is the past. A man who fights for no flag. A man loyal to no country.
Nestor: How many battles have we won off the edge of his sword? This will be the greatest war the world has ever seen. We need the greatest warrior.

MV5BMTI3MDM3NTkyMF5BMl5BanBnXkFtZTcwMzY5MTQyMw@@._V1_SX1535_CR0,0,1535,999_AL_

একিলিসকে যুদ্ধে রাজি করানোর দায়িত্ব পড়ে ইথাকার রাজা অডিসিউসের উপর। তার সঙ্গে একিলিসের যে কথোপকথান তাতেও রণনীতির অনেক কথা উঠে আসে। একিলিসকে যুদ্ধে উদ্ধুদ্ধ করার জন্য তার বাক-কৌশল ছিল প্রশংসনীয়।
Achilles: I will not fight for him (Agamemnon).
Odysseus: I’m not asking you to fight for him. I’m asking you to fight for Greece.
Achilles: Have the Greeks tired of fighting each other?
Odysseus: For now.
Achilles: The Trojans never harmed me.
Odysseus: They insulted Greece.
Achilles: They insulted one Greek, a man who couldn’t hold on to his wife. What business is that of mine?
Odysseus: Your business is war, my friend.
Achilles: Is it? Am I the whore of the battlefield? The man has no honor. I won’t be remembered as a tyrant’s mercenary.
Odysseus: Let Achilles fight for honor. Let Agamemnon fight for power. And let the gods decide which man to glorify.
ট্রয়ের রাজপুত্র হেক্টর আসন্ন যুদ্ধ নিয়ে রাজা প্রিয়ামের সঙ্গে আলোচনা করেন। হেক্টর যুদ্ধে অনিচ্ছুক ছিলেন, কিন্তু প্রিয়াম সূর্যের দেবতা অ্যাপোলোর ভরসায় যুদ্ধে আত্মবিশ্বাসী ছিলেন।
Hector: This is my country, and these are my countrymen. I don’t want to see them suffer so my brother can have his prize. It’s not just the Spartans coming after her. By now, Menelaus has gone to Agamemnon. And Agamemnon has wanted to destroy us for years. Once we’re out of the way, he controls the seas.
Priam: Enemies have been attacking us for centuries. Our walls still stand.
Hector: Father, we can’t win this war.
Priam: Apollo watches over us. Even Agamemnon is no match for the gods.
Hector: And how many battalions does the sun god command?
Priam: Do not mock the gods.
ট্রয়ের সৈকতে একিলিসের সৈন্যদল মারমেডিয়ানরা প্রথম নামে এবং একিলিসের বীরত্বে গ্রীকরা তার নামে জয়জয়কার করতে থাকে। তখন নেস্টর আর আগামেমননের মধ্যে আলাপচারিতা হয়। সৈনিকদের মধ্যে একিলিসের জনপ্রিয়তায় আগামেমনন স্পষ্ট ঈর্ষা বোধ করে।
Nestor: Give him the battle, we’ll take the war.
Agamemnon: Give him too many battles and the men will forget who’s king.
একিলিস ও তার সেনাদল অ্যাপোলোর মন্দিরে ঢুকে পুরোহিতদের আক্রমণ করে বসে। অ্যাপোলো ছিলো। ট্রোজানদের কূলদেবতা। অ্যাপোলোর মন্দির ধ্বংস করে গ্রীকরা ট্রোজানদের মনোবল ধ্বংস করতে চেয়েছিলো। হেক্টর সেখানে ছুটে গেলে একিলিসের সঙ্গে তার বাক্য বিনিময় হয়।
Hector: These priests weren’t armed.
Agamemnon: Yes. There’s no honor in cutting old men’s throats.
Hector: Only children and fools fight for honor. I fight for my country.
ট্রয়ের সৈকত বিজয়ের পর একিলিসের সঙ্গে আগামেমননের আরেকবার বাদানুবাদ হয়। অডিসিউস আগেই একিলিসকে সতর্ক করে দেয়।
Odysseus: War is young men dying and old men talking. You know this. Ignore the politics.

 

যুদ্ধে সৈনিকেরা প্রাণ দেয়, কিন্তু বিজয়ী হিসেবে ইতিহাসে নাম থাকে রাজাদের। এই অবশ্যম্ভাবী পরিণাম নিয়েই একিলিস আর আগামেমননের বিতর্ক চলে।
Achilles: Apparently, you won some great victory.
Agamemnon: Perhaps you didn’t notice. The Trojan beach belonged to Priam in the morning. It belongs to Agamemnon in the afternoon.
Achilles: Have the beach. I didn’t come here for sand.
Agamemnon: No. You came here because you want your name to last through the ages. A great victory was won today. But that victory is not yours. Kings did not kneel to Achilles. Kings did not pay homage to Achilles.
Achilles: Perhaps the kings were too far behind to see. Soldiers won the battle.
Agamemnon: History remembers kings! Not soldiers. Tomorrow, we’ll batter down the gates of Troy. I’ll build monuments on every island of Greece. I’ll carve “Agamemnon” in the stone. My name will last through the ages. Your name is written in sand… for the waves to wash away.
Achilles: Be careful, king of kings. First, you need the victory.
একই সন্ধ্যায় ট্রয়ের রাজা প্রিয়াম রাজপুত্র প্যারিসের সঙ্গে বাগানে বসেছিলেন। ট্রয় রাজ্যে যুদ্ধ ডেকে আনার জন্য প্যারিস অনুতপ্ত ছিল। তখন প্রিয়াম তাকে বলেন, I’ve fought many wars in my time. Some were fought for land, some for power, some for glory. I suppose fighting for love makes more sense than all the rest.
ট্রয়ের যোদ্ধাদের অকাতরে মরতে দেখে সেই রাতেই হেলেন মেনেলাওসের কাছে ফিরে গিয়ে যুদ্ধ রোধ করতে চায়। হেক্টর তাকে থামায়।
Helen: I’m giving myself back to Menelaus. He can do what he wants. Kill me, make me his slave, I don’t care. Anything is better than this.
Hector: It’s too late for that. Do you think Agamemnon cares about his brother’s marriage? This is about power. Not love.
ঠিক পরদিন সকালেই যুদ্ধক্ষেত্রে আগামেমনন হেক্টরের কথার প্রতিফলন ঘটায়। প্যারিস প্রস্তাব রাখে মেনেলাওস এবং প্যারিস হেলেনের অধিকার নিয়ে দ্বন্দ্ব লড়বে। বিজয়ী যোদ্ধা হেলেনকে পাবে। আগামেমনন প্রস্তাবে রাজী হয় না, বলে, A brave offer, but not enough.
মেনেলাওস এবং আগামেমনন তখন একান্তে কথা বলে। একজন চায় প্রতিশোধ, একজন চায় ক্ষমতা।
Menelaus: Let me kill this little peacock.
Agamemnon: I didn’t come here for your pretty wife. I came here for Troy.
Menelaus: I came for my honor. His every breath insults me. Let me kill him. When he’s lying in the dust, signal to attack. You’ll have your city. I’ll have my revenge.
Agamemnon: So be it.

827647

আরেকটি বিষয় এখানে লক্ষ্য করার মত, হেলেনের অধিকার নিয়ে দুই রাজপুরুষ দ্বন্দ্বযুদ্ধে লিপ্ত হয়। বিজয়ী যোদ্ধা হেলেনকে পাওয়ার প্রস্তাবে উভয়ে সম্মত হয়। কিন্তু হেলেন কাকে চায়, সে মতামতকে সম্মান জানানোর প্রস্তাব রাখেনি কেউ। এখানে শুধু রাজ্য দখলের রাজনীতি হয়নি, নারীর অধিকার নিয়েও পুরুষের পেশীতন্ত্র সক্রিয় ছিল।
একিলিস নিজের ভাই পেট্রোক্লাসকে সৈনিকের দায়বদ্ধতা নিয়ে নিজের তাঁবুতে কথা বলেছিল।
Achilles: Soldiers, they fight for kings they’ve never even met. They do what they’re told, die when they’re told to.
Patroclus: Soldiers obey.
Achilles: Don’t waste your life following some fool’s orders.
একিলিসের অনুপস্থিতিতে যখন গ্রীক বাহিনী পরাজয়ের দ্বারপ্রান্তে তখন এই পেট্রোক্লাস একদিন একিলিসের যুদ্ধ পোশাক পরে যুদ্ধে যায়। সবাই তাকে একিলিস বলেই ধরে নেয়। হেক্টরের সঙ্গে সম্মুখ যুদ্ধে সে মারা যায়। পেট্রোক্লাসের মৃত্যুতে একিলিসের পুনরায় যুদ্ধে অংশগ্রহণ নিশ্চিত হয়ে যায়। তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় আগামেমনন উপস্থিত হয়। কিন্তু তার মধ্যে মৃত্যুর বেদনা ছিল না। নেস্টরকে সে বলেছিল, That boy has just saved this war for us.
একিলিস যদিও কেবলই যোদ্ধা ছিল, মাঝে মাঝে মানুষের জীবন নিয়ে সে খুব সারগর্ভ মন্তব্য করত। ট্রয়ের মন্দিরের পূজারিনী ব্রিসেইসকে মানুষের অমরত্ব নিয়ে সে বলেছিলো,
I’ll tell you a secret…something they don’t teach you in your temple. The gods envy us. They envy us because we’re mortal. Because any moment might be our last. Everything’s more beautiful because we’re doomed.
ট্রয় ও গ্রীসের সেনাবাহিনী যুদ্ধক্ষেত্রে মুখোমুখি দাঁড়ায়। হেক্টর এবং আগামেমননের মধ্যে যুদ্ধ পূর্ববর্তী বাক্য বিনিময় হয়। হেক্টর শুরু থেকেই এই যুদ্ধে ক্ষমতার রসায়ন নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিল। আগামেমননের ক্ষমতার লোভের ব্যাপারে স্পষ্ট অঙ্গুলি নির্দেশ করে দিয়েছিলো হেক্টর।
Hector: You come here uninvited. Go back to your ships and go home.
Agamemnon: We’ve come too far, Prince Hector.
. . . . .
Agamemnon: Look around you, Hector. I brought all the warriors of Greece to your shores.
Nestor: You can still save Troy, young prince.
Agamemnon: I have two wishes. If you grant them, no more of your people need die. First, you must give Helen back to my brother. Second, Troy must submit to my command… to fight for me whenever I call.
Hector: You want me to look upon your army and tremble? Well, I see them. I see 50,000 men brought here to fight for one man’s greed.
Agamemnon: Careful, boy. My mercy has limits.
Hector: And I’ve seen the limits of your mercy. And I tell you now, no son of Troy will ever submit to a foreign ruler.
Agamemnon: Then every son of Troy shall die.
একিলিসের সঙ্গে আগামেমননী দ্বন্দ্বের কারণে একিলিস এবং তার সেনাদল মারমেডনরা যুদ্ধে যোগ দেয় না। তখন হেক্টরের আক্রমণে গ্রীক সেনাদল দিশেহারা হয়ে পড়ে। একবার তারা ভাবে যুদ্ধক্ষেত্র ছেড়ে নিজ দেশে পালাবে। কিন্তু তাতে অন্য দেশের লোকেরা জেনে যাবে, আগামেমননের হারের কথা। সেটা তারা কিছুতেই হতে দিতে চাইছিল না।
Nestor: If we leave now, we lose all credibility. The Trojans can beat us so easily. How long before the Hittites invade?
Odysseus: If we stay, we stay here for the right reasons. To protect Greece, not your pride. Your private battle with Achilles is destroying us.
Agamemnon: Achilles is one man.
Odysseus: Hector is one man. Look what he did to us today.
Agamemnon: Hector fights for his country! Achilles fights only for himself!
Odysseus: I don’t care about the man’s allegiance. I care about his ability to win battles.
ইথাকার রাজা অডিসিউস পরদিন একিলিসকে যুদ্ধে রাজি করাতে যায়। আগামেমননের আজ্ঞাদাস হওয়ার জন্য একিলিস অডিসিউসের সমালোচনা করে। নেতৃত্ব, যুদ্ধজয়, ক্ষমতা নানা বিষয়ে কথা হয় তাদের।
Odysseus: The world seems simple to you, my friend…but when you’re a king, very few choices are simple. Ithaca cannot afford an enemy like Agamemnon.
Achilles: Are we supposed to fear him?
Odysseus: You don’t fear anyone. That’s your problem. Fear is useful.
Achilles: Of all the kings of Greece, I respect you the most. But in this war, you’re a servant.
Odysseus: Sometimes you have to serve in order to lead. I hope you understand that one day.
একিলিস হেক্টরের বোন ব্রাইসিসকে ধরে এনে তাকে রক্ষিতা ও দাসী হিসেবে আটকে রাখে। পেট্রোক্লাসের হত্যার প্রতিশোধ নিতে একিলিস হেক্টরকে হত্যা করে নিজের তাঁবুতে ফেরত আসে।
Briseis: You lost your cousin. Now you’ve taken mine. When does it end?
Achilles: It never ends.
একই বিষয়ে ট্রয়ের রাজা প্রিয়ামের সঙ্গেও একিলিসের কথা হয়। যুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বী যোদ্ধা হেক্টরের মৃতদেহের সঙ্গে চরম নিষ্ঠুর আচরণ করে একিলিস। হেক্টরের মৃতদেহ সংগ্রহ করে সৎকারের অনুরোধ নিয়ে প্রিয়াম একিলিসের কাছে আসে।
Achilles: He killed my cousin.
Priam: He thought it was you. How many cousins have you killed? How many sons and fathers and brothers and husbands? How many, brave Achilles?
. . . . .
Achilles: If I let you walk out of here… if I let you take him…it doesn’t change anything. You’re still my enemy in the morning.
Priam: You’re still my enemy tonight. But even enemies can show respect.
ট্রয় ও গ্রীসের যুদ্ধে অনেক হতাহতের পরে ক্ষমতার পালাবদল হয়। কাহিনীর শেষে দেখা যায় কেউ সহযোদ্ধা ও স্বজনদের শবদাহ করছে, ট্রয়ের জীবিতরা সর্বহারা হয়ে পথে নেমেছে।
মানুষের মধ্যে তবু ক্ষমতার লোভ শেষ হয়না। আজও আগামেমননরাই ক্ষমতার শীর্ষে থাকে। যুদ্ধে তাদের সঙ্গে মিত্র হয় নেস্টর, অডিসিউস, ট্রিওপাসরা। আজও একিলিসদের মত প্রতিভাবান খুনীরা আগামেমননদের সহায় হয়ে যায়। ঈলিয়াড শেষ পর্যন্ত প্যারিস আর হেলেনের প্রেমের গল্প থাকে না; হয়ে ওঠে ক্ষমতার লোভ, হত্যা আর প্রতিশোধের গল্প। এটাই মানুষের ইতিহাস, সভ্যতার সত্যিকার চেহারা।

POST YOUR COMMENTS

Your email address will not be published. Required fields are marked *

লোগো ডিজাইন - অন্তর রায়

ওয়েব ডিজাইন - এইচ ২ ও

অনলাইনে চলচ্চিত্র বিষয়ক পূর্ণাঙ্গ ম্যাগাজিন 'মুখ ও মুখোশ' । লেখা পাঠাতে ও আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে মেইল করতে পারেন এই ঠিকানায়ঃ mukhomukhoshcinemagazine@gmail.com